স্বপ্ন থেকে দুঃস্বপ্ন! সৌদিতে চাকরি করতে গিয়ে যৌনদাসী হতে হল ভারতীয় মহিলাকে

 

1487475280046.jpgহায়দরাবাদ: চাকরি করবেন। এই আশাতেই সৌদি আরব গিয়েছিলেন হায়দরাবাদের এক দম্পতি। অটো-রিক্সা, এয়ার-কন্ডিশনার বিক্রি করে কোনোরকমে আড়াই লক্ষ টাকা জোগাড় করে গিয়েছিলেন তাঁরা। কিন্তু কিছুদিনের মধ্যেই সেই স্বপ্ন পরিণত হয় দুঃস্বপ্নে। প্রায় যৌনদাসীতে পরিণত হন নূরজাহাজান। দীর্ঘ লড়াইয়ের পর প্রচুর টাকা দিয়ে ছাড় পায় নূরজাহান। ভারতে ফিরেছেন তিনি। কিন্তু, এখনও ফিরতে পারেননি তাঁর স্বামী।

মুম্বইয়ের ইমিগ্রেশন এজেন্ট নিসার তাঁদের চাকরির আশ্বাস দিয়েছিলেন। নূরজাহাজানকে বিউটিশিয়ান আর তাঁর স্বামীকে ড্রাইভারের চাকরি দেওয়ার কথা ছিল। সেইমত চাকরিও পান তাঁরা। কিন্তু, প্রথম ধাক্কাটা লাগে সৌদিতে পৌঁছনোর পর। দু’জনকে দুটি লাদা জায়গায় নিয়ে যাওয়া হয়। নূরজাহাজনকে কাজ দেওয়া হয় দাম্মামে, আর তাঁর স্বামীকে রিয়াধে। আপত্তি জানালেও, মেনে নেন তাঁরা। পার্লারে কাজ শুরু করেন নূরজাহান। মাস তিনেক পরে তাঁর হাতে আসে ওয়ার্কিং ভিসা। তাঁকে ‘maid’ হিসেবে উল্লেখ করা হয়েছে দেখে চমকে যান তিনি। তাঁর সঙ্গে থাকা অন্যান্য মেয়েদের থেকে তিনি জানতে পারেন ‘home service’ শব্দটার মধ্যেই পড়ে যৌন লালসা মেটানো। বিবাহিত বলে আর অসুস্থতার অজুহাতে প্রথম দিকে এড়িয়ে যেতে থাকেন বিষয়টা। পরে শুরু হয় অত্যাচার। মাথার চুল টেনে-হিঁচড়ে নিয়ে যাওয়া হত তাঁকে। সহ্য করতে না পেরে আত্মহত্যার চেষ্টাও করেন তিনি। এখনও তাঁর শরীর জুড়ে সেই অত্যাচারের দাগ দগদগে।

আত্মহত্যার চেষ্টার অভিযোগে জেল হয় তাঁর। জেলে তিন মাস রোজা রাখেন তিনি। তাঁকে ছাড়তে আড়াই লক্ষ টাকা জরিমানা দিতে হত। আর তার জন্যই সেই খবর জানানো হয় তাঁর স্বামীকে। একদিকে শাপে বর হয়। টাকা দিতে রাজি হন স্বামী। মুম্বই পুলিশকে জানালে তারা সঙ্গে সঙ্গে নিসারকে গ্রেফতার করে। টাকা সম্পূর্ণ মেটানো হয়নি বলে সৌদিতেই থেকে যেতে হয়েছে নূরজাহানের স্বামীকে। তাই তিনি এখনও জানেন না তাঁর ভবিষ্যতটা ঠিক কি। তবে আবার কাজ শুরু করবেন বিউটি পার্লারে।

হিন্দুনববার্তা।

February 19.2017.

 

Advertisements

Leave a Reply

Fill in your details below or click an icon to log in:

WordPress.com Logo

You are commenting using your WordPress.com account. Log Out / Change )

Twitter picture

You are commenting using your Twitter account. Log Out / Change )

Facebook photo

You are commenting using your Facebook account. Log Out / Change )

Google+ photo

You are commenting using your Google+ account. Log Out / Change )

Connecting to %s