কবরস্থানকে জমি দিলে শ্মশান পাবে না কেন: উত্তরপ্রদেশ ভোটে প্রধানমন্ত্রীর প্রশ্নে শুরু তরজা।

কবরস্থানকে জমি দিলে শ্মশান পাবে না কেন: উত্তরপ্রদেশ ভোটে প্রধানমন্ত্রীর প্রশ্নে শুরু তরজা।

1487558462847

হিন্দুনববার্তা বাংলা ডেস্ক: february.21.2017.

লখনউ: যদি কোনও গ্রামে কবরস্থানের জন্য জমি দেওয়া হয়, তবে শ্মশানের জন্যও দেওয়া উচিত। যদি রমজানে বিদ্যুৎ দেওয়া হয়, তবে দেওয়া হোক দীপাবলীতেও। একইভাবে দোলে বিদ্যুতের সুবিধে থাকলে তা ইদেও পাওয়া উচিত। উত্তরপ্রদেশ ভোট প্রচারে প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদীর এই মন্তব্যে বিতর্ক দানা বেঁধেছে। ফতেহপুর জেলায় ভাষণ দিতে গিয়ে এ কথা বলেছেন তিনি।

অখিলেশ যাদব সরকারকে উদ্দেশ্য করে প্রধানমন্ত্রী বলেন, রাজ্য সরকারের দেখা উচিত, কোথাও কোনও বৈষম্য হচ্ছে কিনা। ধর্ম বা জাতপাতের ভিত্তিতে রাজ্যবাসীর প্রতি অবিচার করা উচিত নয়। কিন্তু উত্তরপ্রদেশের সব থেকে বড় সমস্যা হল, এখানে বৈষম্য অত্যন্ত বেশি। দলিতরা বলছে, তাদের প্রাপ্য ওবিসিরা পাচ্ছে, ওবিসিরা বলছে, তাদের প্রাপ্য যাদবরা নিয়ে যাচ্ছে আবার যাদবরা বলছে, সব পাচ্ছে মুলায়ম পরিবারের সঙ্গে যুক্তরা, বাকি যাচ্ছে মুসলমানদের ঘরে। অর্থাৎ সকলেই বৈষম্যের শিকার।

প্রধানমন্ত্রীর মন্তব্য, এই ভেদাভেদ চলতে পারে না। যার যেখানেই জন্ম হোক, প্রত্যেকের নিজের অধিকার মেলা উচিত। একইসঙ্গে বলেন, তাঁর সরকারের নীতি সবকা সাথ, সবকা বিকাশ।

কিন্তু স্বয়ং নরেন্দ্র মোদীর এই বয়ান বিরোধীরা মোটেই ভাল চোখে দেখেননি। তাঁদের অভিযোগ, ভোটে হারের ভয়ে প্রধানমন্ত্রী ধর্মীয় মেরুকরণের তাস খেলছেন। এসপি-কংগ্রেস জোটে আশঙ্কিত হয়ে হিন্দু ভোট একজোট করার চেষ্টা করছেন তিনি। তাঁর বক্তব্যের তীব্র সমালোচনা করে একের পর এক বয়ান আসতে থাকে বিরোধীদের।

 

কংগ্রেস প্রশ্ন করে, কী করে এই মানুষটি গাঁধীর ভারতের প্রধানমন্ত্রী হলেন?

হিন্দুনববার্তা বাংলা ডেস্ক:

Advertisements

Leave a Reply

Fill in your details below or click an icon to log in:

WordPress.com Logo

You are commenting using your WordPress.com account. Log Out / Change )

Twitter picture

You are commenting using your Twitter account. Log Out / Change )

Facebook photo

You are commenting using your Facebook account. Log Out / Change )

Google+ photo

You are commenting using your Google+ account. Log Out / Change )

Connecting to %s