প্রতিটি উপজেলায় মডেল মসজিদ হলে অন্য ধর্মালম্বীদের জন্য মডেল উপাসনালয় নয় কেন?!

হিন্দুনববার্তা ডেস্কঃ মনে প্রশ্ন জাগে কেনই বা পিছিয়ে থাকবে না এ দেশের সংখ্যালঘু সম্প্রদায়? আর এই ‘কেন’ প্রশ্নের উত্তরে যা দাঁড়ায়, তা হল দেশের এই সম্প্রদায়ের উপরে চোখ নেই বর্তমান সরকারের। 

1490364325064

বাংলাদেশের মাটিতে বর্তমান সরকার সংখ্যালঘু সম্প্রদায়ের পাশে দাঁড়িয়েছে এমন দৃষ্টান্ত খুব কমই আছে। পৃথিবীতে বসবাসের জন্য যে মৌলিক অধিকারগুলো সবার রয়েছে, সেগুলো থেকেও অনেক সময় বঞ্চিত হতে হয়েছে এ সম্প্রদায়কে। কখনও কখনও যেমন খুশি যেভাবে খুশি সেভাবেই অত্যাচার-নিপীড়ন করার ঘটনাও খুব ভালভাবেই জানে বিশ্ববাসী। ‘দূর্বলের উপরে সবলের অত্যাচার’ এ প্রথা তো বাংলাদেশ সৃষ্টির পর থেকেই অব্যাহত রয়েছে। একে বলে কি ধরনের নির্যাতন..?? যাকে একবার তাক করা হয় তাকে শুধু অত্যাচারই নয় বিশ্ববাসীর কাছে বিখ্যাত বানিয়ে তবেই সম্পন্ন হয় তাদের কার্যক্রম। যার একমাত্র জলন্ত প্রমান রসরাজ। জানিনা এদেশে কোনদিন সেই স্বর্ণযুগ আসবে, যখন সংখ্যাগুরু সম্প্রদায়ের সাথে একই তালে চলতে পারবে সংখ্যালঘুরাও, কবেই বা তাদের মতো সমঅধিকার নিয়ে বাচঁতে পারবে এরা। এগুলো তো শুধুই স্বপ্ন। কেননা, যেদেশে মানুষ সম অধিকার বলতে বুঝে দাঙ্গা-হাঙ্গামা, মিলেমিশে বসবাস করার অর্থ যাদের কাছে মন্দিরসহ সংখ্যালঘুদের ঘরবাড়ি ভাঙচুর, অগ্নি সংযোগ ঘটানো তাদের সাথে বসবাস করলে এসব তো স্বপ্ন ছাড়া আর কিছুই হতে পারেনা। এ দেশে প্রতিনিয়ত ভাঙচুর করা হচ্ছে শত শত মন্দির, ধর্ষিত হচ্ছে অসংখ্য মা বোনারা। বিগত কয়েক বছরে এদেশে ভাংচুর করা হয়েছে অসংখ্য মন্দির, গীর্জা ও প্যাগোডা যার পরিপ্রেক্ষিতে নতুন করে তৈরী করাতো দুরের কথা, উক্ত উপাসনালয়গুলো সংস্কারেরও কোন পদক্ষেপ গ্রহন করেনি সরকার। অথচ দেশব্যাপি শত শত মসজিদ থাকা সত্তেও

নতুন করে মডেল মসজিদ কমপ্লেক্স নির্মাণের উদ্যোগ নিয়েছে সরকার। দেশের প্রতিটি জেলা ও উপজেলায় মোট ৫৬০টি মসজিদ নির্মাণ করা হবে। সম্প্রতি ধর্মবিষয়ক মন্ত্রণালয় এসব মসজিদ নির্মাণের লক্ষ্যে আট হাজার ৯৩ কোটি টাকার একটি প্রকল্প তৈরি করে অনুমোদনের জন্য পরিকল্পনা মন্ত্রণালয়ে পাঠিয়েছে। বর্তমানে পরিকল্পনা কমিশনের আর্থসামাজিক অবকাঠামো বিভাগের প্রকল্প মূল্যায়ন কমিটির অনুমোদনের অপেক্ষায় রয়েছে প্রকল্পটি। সংশ্লিষ্ট সূত্রে এ তথ্য জানা গেছে। নিঃসন্দেহে এটা একটা মহৎ কাজ। কিন্তু অন্যদিকে দেশের বর্তমান অবস্থা থেকে দেখা যায়, দেশে যে পরিমানে হিন্দুদের ঘরবাড়ি, মন্দির ভাংগচুর করা হচ্ছে সেই তুলনায় একটাও কি নতুন মন্দির, গীর্জা বা প্যাগোডা তৈরী হচ্ছে ?

প্রসঙ্গ যে, গত বছর জুনে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা সৌদি আরব সফর করেন। ওই সফরে প্রধানমন্ত্রী সৌদি বাদশাহর সঙ্গে আলোচনায় দেশব্যাপী মডেল মসজিদ নির্মাণের বিষয়টি তুলে ধরে সহযোগিতার প্রস্তাব করেন। তাহলে আগামি কিছুদিনের মধ্যে প্রধানমন্ত্রী ভারত সফরে যাচ্ছেন এ কথা আমরা জানতে পেরেছি। সুতরাং প্রধানমন্ত্রীর উচিত হবে এরকম মডেল মন্দির করার জন্যে ভারত সরকারের কাছে সহযোগিতার প্রস্তাব তুলে ধরা। সনাতন ধর্মালম্বীদের পক্ষ থেকে এটা প্রধানমন্ত্রীর কাছে তাদের জোর দাবি বলে জানিয়েছেন সনাতন ধর্মালম্বী নেতৃবৃন্দ।

আজ সরকার হয়তো ভুলে গেছে আমাদের দেশটি একটি অসাম্প্রদায়িক দেশ! এইদেশে সকল জাতীর মানুষদের সাংবিধানিকভাবে সমধিকার রয়েছে । সেদিকে লক্ষ্য করলে দেখা যায় মসজিদের সাথে সাথে অবশ্যেই অন্যান্য ধর্মাবলম্বীদের জন্যও মডেল মন্দির, গীর্জা, প্যাগোডা তৈরী করা সরকারের দায়িত্ব। সরকারের এই বিষয়টি নিয়ে ভাববার অবকাশ আছে বলে বিশেষজ্ঞ মহলের ধারনা।

the magazine hindunobobarta 24.03.2017.

ভালো লাগলে শেয়ার করুন।

প্রকাশ : এইবেলাডটকম

 

Advertisements

Leave a Reply

Fill in your details below or click an icon to log in:

WordPress.com Logo

You are commenting using your WordPress.com account. Log Out / Change )

Twitter picture

You are commenting using your Twitter account. Log Out / Change )

Facebook photo

You are commenting using your Facebook account. Log Out / Change )

Google+ photo

You are commenting using your Google+ account. Log Out / Change )

Connecting to %s