বাংলায় হিন্দুত্বের ‘প্রচার’ আটকাতে ফেসবুকে নজরদারি রাজ্য সরকারের।

ফেসবুকে হিন্দুত্ববাদী পোস্টের উপরে নজর রাখছেন গোয়েন্দারা।

1492144468286

রামনবমীর মিছিলে লক্ষাধিক লোকের সমাগম দেখে চোখ কপালে উঠে গিয়েছে নবান্নর। ফেসবুকে প্রচার করে সঙ্ঘ পরিবার লোক টেনেছে বলে মনে করছেন রাজ্যের গোয়েন্দারা। সূত্রের খবর, তাদের ঠেকাতে ফেসবুকে নজরদারি চালাবে রাজ্য প্রশাসন। কোনওরকম গুজব ছড়ালেই ব্যবস্থা নেওয়া হবে। মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের সরকার মনে করছে, ফেসবুকে বিভেদের বিষ ছড়ানো হচ্ছে। হিন্দুত্ববাদী কয়েকটি গ্রুপও খুলেছে ফেসবুকে, সেগুলির উপরেও চালানো হবে নজরদারি।

নবান্নর নির্দেশে হিন্দুত্ববাদী নেতাদের পোস্টে নজর রাখতে শুরু করেছেন গোয়েন্দারা। স্পেশাল টাস্ক ফোর্সকেও কাজে লাগানো হচ্ছে। নজর রাখা হচ্ছে হিন্দুত্ববাদী গ্রুপগুলিতে। অনেকেই ভুয়ো অ্যাকাউন্ট খুলে বিদ্বেষমূলক মন্তব্য ছড়ানো হচ্ছে বলে অভি‌যোগ। সেগুলির উপরে নজর রাখা হচ্ছে। দরকারে আসল অ্যাকাউন্ট হোল্ডারকে খুঁজে গ্রেফতারও করা হবে।

প্রশাসন মনে করছে, এরাজ্যে হঠাৎ করেই সক্রিয় হয়ে উঠেছে হিন্দুত্ববাদীরা। ফেসবুক ও হোয়াটস অ্যাপে গ্রুপ খুলে তারা প্রচার চালাচ্ছে। রামনবমীতেও এবার এভাবেই লোক জড়ো করা হয়েছে। ফলে উদ্বিগ্ন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। রাজনৈতিক ও প্রশাসনিকভাবে শাসক দলকে এর ফল ভুগতে হবে। ফেসবুকের গুজবের জেরে রাজ্যে বড়সড় অশান্তি বাধতে পারে। পাশাপাশি গেরুয়া শিবিরের উত্থান মানে তৃণমূলের একাধিপত্য খর্ব হওয়া।

হিন্দু জাগরণ মঞ্চের বক্তব্য, রাজ্য জেএমবি-ও তো ফেসবুকের মাধ্যমে প্রচার করে। তাদের উপরে নজর না দিয়ে অ‌যথা হিন্দুদের কেন টার্গেট করা হচ্ছে?

হিন্দু নববার্তা ম্যাগাজিঙ নিউজ ১৪.০৪.২০১৭.

Advertisements

Leave a Reply

Fill in your details below or click an icon to log in:

WordPress.com Logo

You are commenting using your WordPress.com account. Log Out / Change )

Twitter picture

You are commenting using your Twitter account. Log Out / Change )

Facebook photo

You are commenting using your Facebook account. Log Out / Change )

Google+ photo

You are commenting using your Google+ account. Log Out / Change )

Connecting to %s