জেনে নিন পুরীর জগন্নাথদেবের মন্দিরে আগে কারা কেন ঢোকেননি।

জেনে নিন পুরীর জগন্নাথদেবের মন্দিরে আগে কারা কেন ঢোকেননি।

1492518673232

মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়কে প্রবেশ আটকে দিতে চাওয়ায় পুলিশের কাছে আটক হয়েছেন পুরীর মন্দিরের এক পাণ্ডা৷ এভাবে পুরীর মন্দিরে কারও প্রবেশাধিকার আটকে দেওয়ার ঘটনা নতুন নয়৷ এই মন্দির ঘিরে বিতর্কের মধ্যে সবচেয়ে আলোচিত বিষয় হল এখানে অহিন্দুদের প্রবেশ নিষেধ৷ এই বিষয়ে তারা এতটাই গোঁড়া যে কোন রকম বিধর্মী আচরণ বরদাস্ত করে না৷ ফলে এই মন্দিরে তেমন কোনও ভিআইপি-র জন্যেও এই বিষয়ে কোনও রকম শিথিলতা দেখাতে রাজি নয়৷ তারজন্য যেমন একদিকে অনেকের মন্দিরে প্রবেশ আটকে গিয়েছে তেমনই আবার প্রতিবাদে কেউ কেউ সেখানে ঢোকেননি৷ সেটাই এবার দেখে নেওয়া যাক৷

ভারতের প্রধানমন্ত্রী থাকাকালীন ইন্দিরা গান্ধীকে মন্দিরে যেতে গেলে পুরীর মন্দিরের পাণ্ডারা মন্দিরে প্রবেশ করতে দেয় নি কারণ তাঁদের যুক্তি ছিল ইন্দিরার সঙ্গে অহিন্দু পারসিক ফিরোজ গান্ধীর বিয়ে হয়েছিল ফলে তিনিও আর হিন্দু নন। এজন্য শেষে ইন্দিরা গান্ধীকে মন্দিরের নিকটে অবস্থিত রঘুনন্দন লাইব্রেরি বিল্ডিং থেকে মন্দির দর্শন করে ফিরে যেতে হয়৷

১৯৩৪ সালে মহাত্মা গান্ধী জাতপাতের বিরোধিতা করে প্রতিবাদ জানিয়ে পুরীর মন্দিরে প্রবেশ করেননি৷ সেদিন তিনি ওই মন্দিরের সিংহদ্বারে ধর্নায় বসেছিলেন হরিজন পদযাত্রার প্রচারে৷ তবে তাঁর স্ত্রী কস্তুরবা মন্দিরে গিয়ে পুজো দিয়ে এসেছিলেন৷
একই রকম ভাবে উড়িষ্যার প্রাক্তন মুখ্যমন্ত্রী বিশ্বনাথ দাসও জাতপাতের বিরোধিতা করে প্রতিবাদস্বরূপ মন্দিরে প্রবেশ করেননি৷
আবার বিশ্বকবি রবীন্দ্রনাথকেও তারা মন্দিরে প্রবেশ করতে দেননি কারণ তিনি ব্রাহ্ম সমাজের অংশ ছিলেন বলে।

পুরীর জগন্নাথ একেবারে হিন্দু দেবদেবীর মন্দির ফলে কোনও অহিন্দুর প্রবেশ নিষিদ্ধ তাই এক সময় ইসকন ভক্তদের তৎকালীন মুখ্যমন্ত্রী জানকী বল্লভ পট্টনায়ক সেখানে প্রবেশের কথা বললেও মন্দির কতৃপক্ষ রাজি হয়নি৷

তবে এর বহু বছর আগে ১৩৮৯ সালে ভক্ত কবীর মন্দিরে দর্শনে এলে প্রথমে তাঁকে মন্দিরের পুরোহিতরা আটকে দেন তাঁকে মুসলমান মনে করে ৷ ১৫০৫ সালে নানকেও আটকে দেওয়া হয়েছিল কারণ তাঁর সঙ্গে ছিলেন মুসলমান ভক্ত৷ তবে পরবর্তীকালে কবীর এবং নানক উভয়কেই মন্দিরে ঢুকতে দেওয়া হয় কারণ তখন পুরীর রাজা গজপতী ঘোষণা করেন তিনি স্বপ্নে দেখেছেন জগন্নাথদেব ওনাদের ভক্ত বলেছেন৷

হিন্দু নববার্তা ম্যাগাজিঙ নিউজ ১৮.০৪.২০১৭.

ভাল লাগলে শেয়ার করুন।

Advertisements

Leave a Reply

Fill in your details below or click an icon to log in:

WordPress.com Logo

You are commenting using your WordPress.com account. Log Out / Change )

Twitter picture

You are commenting using your Twitter account. Log Out / Change )

Facebook photo

You are commenting using your Facebook account. Log Out / Change )

Google+ photo

You are commenting using your Google+ account. Log Out / Change )

Connecting to %s